অবশেষে স্নিগ্ধ সকাল

অবশেষে স্নিগ্ধ সকাল
——————– ড. রমিত আজাদ

অবশেষে স্নিগ্ধ সকাল নিয়ে আসে মৃদু মোলায়েম রোদ,
নিটোল পাহাড়ী ঝর্ণার কোমল নিস্বন গভীর অন্তস্রোতে।
অবশেষে স্নিগ্ধ সকাল মুছে ফেলে শীতল নিরুত্তাপ রাত,
নির্মেঘ অন্তরীক্ষে সূর্যকরোজ্জ্বল চুনূরি দু্যতির ক্রীড়া।

এখানে প্রিপাত্রী উৎসবে বন্য-আহলাদ বসন্তের অরণ্যে,
এখানে সজীব বৃক্ষপত্রে বিহ্বল সমীরণ নিরত বিভোর।
এখানে বিশৃংখল উর্বীরূহ তান্ত্রিক নিয়ন্ত্রণে দুর্বোধ ত্তলটান।

বিস্তারিত»

আত্মজৈবনিক

এবং কয়েক যুগ পেরিয়ে গেলে খেয়াল হলো যে কবিতা লিখি না
মাথার ভেতর এই খেয়াল মাটিতে পড়ার আগেই আমি দুই ভাগ হয়ে
তর্কে নামলাম। এক ভাগ বলে ওঠে হয়তো আপ্নে কখনই
কবিতা লিখতে পারতেন না। শুনে অন্য ভাগ তেড়ে আসে,
বেশি বুঝেন ইচ্ছা হয় না তাই লিখি না নাহলে দেখিয়ে দিতাম।
আমি দুই ভাগের তর্ক শুনি, কমলার জুস খাই
জুস বেশ তেতো লাগলে ভাবি একটু চিনি মেশালে মন্দ হতো না।

বিস্তারিত»

ইতিহাসের ভিন্নপাঠ।। চেঙ্গিস খান

“চেঙ্গিস খান ছিলেন শক্তিমান, প্রজ্ঞাবান, কুশলী, সম্ভ্রম-জাগানিয়া, কসাই, ন্যায়বান, দৃঢ়চেতা, শত্রুর বিনাশকারী, অকুতোভয়, আশাবাদী ও নির্মম এক মানুষ। ’’

– পারসিক এক ইতিহাসবিদ

১.
গত ২০ বছরে তথ্যের জগতে অবিশ্বাস্য একটা পালাবদল হয়েছে। যেকোনো ব্যাপারে জানতে চাইলে গুগল সার্চবারে লিখলেই চিচিং ফাঁক। চোখের নিমেষে হাজারটা তথ্য (কিংবা অপতথ্য) আপনার সামনে হাজির হয়ে যাবে। কিন্তু, অজ্ঞানতা খানিকটা কমল কি ?

বিস্তারিত»

আজ গান হোক

আজ নিজের পছন্দের কিছু গান শোনাই। না, কোন টপ টেন বা টুয়েন্টি নয় বরং যা ভালো লাগে বা লেগেছে তার লিষ্টি দিলাম।

Screen Shot 2015-01-25 at 14.39.13

জন ডেনভার 

জন ডেনভার এক অসাধারণ কান্ট্রি গায়ক। তার ভালো গানের শেষ নেই। রকি মাউন্টেন হাই, সানশাইন অন মাই শোল্ডার, কান্ট্রি রোড টেক মি হোম , লিভিং অন এ জেট প্লেন, আই এম সরি ইত্যাদি।

বিস্তারিত»

নরবলি

ধিক ! একবিংশ শতাব্দী

এখনও চালু আছে নরবলি !

গণতন্ত্র কিংবা ধনতন্ত্র

মানবাধিকার কিংবা দানবাধিকার

ধ্বংস কিংবা রক্ষায়

অবরোধ হরতাল

আর পেট্রল বোমায় !

[ একই সাথে  বাঁধ ভাঙার আওয়াজ -এ প্রকাশিত]

বিস্তারিত»

অন্তর যন্তর অথবা জাদুর শহর

অদ্ভুত জাদুগন্ধময় এক পরাবাস্তব উৎসব ছিল তার শৈশবের ঈদ।

স্কুল কমিটির ফান্ড ক্রাইসিস, বেতনের এরিয়ার আর সোনালী ব্যাংক এর চেক এর চক্কর কে আম্মা কেমন করে যেন চান রাতে বানিয়ে ফেলতেন চকচকে বাটার জুতো অথবা বাচ্চামিয়া কাপুড়িয়ার দোকান থেকে কেনা নতুন নতুন “বাশনা-আলা” শার্ট। ইব্রাহীম খাঁ এর পুটূ গল্পের মত প্রতি বছরই নিজের সন্তানতুল্য পোষা খাসি কুরবানী দিয়ে সারাদিন কাঁদতেন বড় মা।

কোন এক সোনার কাঠি রুপোর কাঠির বলে তার সাম্যবাদী বাবা আর ধর্মবাদী বড় চাচা খেতে বসতেন একসাথে ওই এক দিনই।

বিস্তারিত»

সুসময়ের মাছি………………………….।।।।।।।

সুসময়ের মাছি…………………..

দুই চোঁখ বুঁজলেই যদি ঘুমানো যেতো,

তাহলে বিনিদ্র রাত কি করে জায়গা পেতো,

দুটি কথা বললেই যদি মানুষটা বোঝা যেতো,

তাহলে মানুষকে চেনাটা হয়ত সহজ হতো।।

শুধু সুখেরই লগ্নে যদি কেউ আশে পাশে থাকে,

কষ্টের লগ্নে যদি খুঁজে কভূ না পাও তাকে,

আড়ালে লুকিয়ে তথা যদি কেউ বলে আমি আছি,

বিস্তারিত»

বুমেরাং

একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ভিন্ন ডিপার্টমেন্টে অনেক ছেলেমেয়ের সাথে দুটো ছেলে মেয়ে পড়তো।
একজন জগৎ সংসার ভোলার জন্য রাতদিন নেশায় ডুবে থাকতো। অন্যজন সংসার করবে বলে সবার অমতে বিয়ে করে অকূলে পড়লো। এরা একদিন সেন্ট্রাল লাইব্রেরীর সিড়িতে এক আড্ডায় বন্ধুদের ভীড়ে পড়ে পরিচিত হলো। ছেলেটার লাল চোখ, ফর্সা মুখ আর আরো কী কী ব্যাপারের কম্বিনেশন মেয়েটার কেমন যেন লাগলো। বান্ধবীর কাছে সে জানলো ছেলেটা অসুখী,

বিস্তারিত»

রহস্য গল্পঃ Why I did what I did?

Why I did what I did?
এই প্রশ্নটা আমার মাথায় লাটিমের মত ঘুরপাক খাচ্ছে। বনবন করে। বনবন শব্দটা যেন আমি নিজের কানেই শুনতে পাচ্ছি। প্রশ্নটা একটা নির্দিষ্ট বৃত্তের মাঝে ঘুরছে, ঘুরছে, এবং ঘুরছে।
প্রশ্নটা আমাকে করেছেন একজন মহিলা। নাম তার মাসুদা খানম। তার সাথে আমার পরিচয় প্রায় ঘণ্টাখানেক আগে।
সারা দিনের মধ্যে শুধুমাত্র সন্ধ্যাটুকু আমি একা একা কাটাই, আমার একটা স্টাডি আছে যেখানে আমি ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থেকে বই পড়তে পছন্দ করি।

বিস্তারিত»

ছড়া

১ দ্যাশরে বালা পাই,

আও পোয়ারা আও পুরিরা দ্যাশরে বালা পাই,
দ্যাশরে লইয়া দুই চোখ ভরিয়া স্বপ্ন দেখিয়া যাই।
দ্যাশটা আমরার অনেক আপন কিতা যে তার দাম,
পাইলাম তুকায়া পরানের দামে বাংলাদেশের নাম।
এ দ্যাশ আমরার অনেক প্রিয় প্রিয় মাদানের রোদ,
বাংলায় মাতি আও রাখি মনো চেতনাবোধ।

২ বাংলাদেশের মাডি মোগো

বেইন্না কালে নিশির ঢোলে কাডাল পাতার গায়,

বিস্তারিত»

পিতৃ ভুমির দায়বদ্ধতা,,, মাতৃ ভাষার অমর কবিতা,,,,,,,,,,,

পিতৃ ভুমির দায়বদ্ধতা,,,
মাতৃ ভাষার অমর কবিতা,,,,,,,,,,,

আমার একটা দুঃখ আছে সুখের প্রলেপ দেয়া,
সেই সুখেতেই কান্না আছে যত্ন করে পাওয়া।
সুখ দুঃখের আস্তাবলে কষ্ট লাগাম টানে,
বেদনা বিলাসে শান্তি বলো পেলাম কেমন করে?
পিতৃ ভুমির দায়বদ্ধতা,,,
মাতৃ ভাষার অমর কবিতা,,,,,,,,,,,

রাত্রিটাকে খুব ভালবাসি প্রখর সূযর্্য তাপে,
অমাবস্যায় অনেক কালো চাঁদনীর অনুতাপে।
ভুল করে যত জাগতিক ভুল স্বপ্নের কান্ডারী,

বিস্তারিত»

হাঁচি! এটা স্বাভাবিক

trigeminal-nerve

শুরুতেই বলি, আমি নিজেই একজন ঘনঘন সিরিজ হাঁচির কষ্টে ভোগা মানুষ। নিজে বাঁচার জন্যে জ্ঞান নিতে যেয়ে এই লেখাটা তৈরি হয়ে গেল। অনেক সময় ব্যয় করে, ঘাঁটা-ঘাঁটি করে অবশেষে লেখাটাকে যখন দাঁড় করালাম তখন দেখি এটা হাঁচির রচনা হয়ে গেছে। এটাকে ছোট করতে গেলেই মনে হচ্ছে নিজের জন্যই কিছু একটা তথ্য বাদ পড়ে যাচ্ছে। অবশ্য জ্ঞানটা নিয়ে উপকার পেয়েছি বটে। কিন্তু তারপরও মাঝেমধ্যে ফেক্সোফেনাড্রিন জাতীয় ওষুধ খাই।

বিস্তারিত»

ছোট মেয়েটির হাত ধরে তুমি

ছোট মেয়েটির হাত ধরে তুমি
————————————————— ড. রমিত আজাদ

হাসি-কান্নার ঝুলনে-দোলনে, যামিনীর কোলে বেদনা-বিহনে,
তোমার আঁখির চাওয়ার হাওয়ায়, হিয়া শিহরণে, মৃদু সমীরণে,
যতনা শঙ্কা তার চেয়ে বেশি খুশি, তব মধু অঙ্গনে,
রঙ্গ বিহঙ্গ গোধুলিলগনে মম প্রণয়ের প্রাঙ্গনে,
পুষ্প পসারিনি, বনের হরিণী, সুনীল সাগরপার,
আপন হয়ে তুমি এসেছিলে কাছে, তবু রয়ে গেলে চির পর।

কান পেতে পেতে শুনেছি তখনি তব নুপুরের সুর,

বিস্তারিত»

আবোলতাবোল বাজনা-২

রাগ ভৈরব শুনলেই শান্ত ভোরবেলার কথা মনে হয়। মনে হয়, আঁধার ফুর‍্যিয়ে গিয়ে একটু একটু করে ফর্সা হয়ে আসছে চারদিক; আরেকটি নতুন দিনের শুরু হতে চলেছে। পুবদিকে উঠে আসছেন সূর্য – কোমল আলো নিয়ে যাত্রা শুরু করে কেমন করে একটু পরেই গনগনে তেজী হয়ে উঠবেন কে জানে

এই রাগটির সঙ্গে আমার কিছু স্মৃতি একদম চিরকালীন হয়ে গেছে। আমাদের কন্যাটি তখন সবে হয়েছে —

বিস্তারিত»