অডিও ব্লগঃ রেলগাড়ির গান

প্রতিবার দেশে গেলে আমার বাবা তারার জন্য একজন মাষ্টারমশাই নিযুক্ত করেছেন গান শেখাতে। পঁচিশ তিরিশের দীর্ঘকায় শ্যামবর্ণ একটি ছেলে সপ্তাহে তিনদিন আসতেন তালিম দিতে। একদিন বাবা বললেন তারা একা গাইবে কেনো, মাগো? তুমিও বসে যাও হারমোনিয়াম নিয়ে। অনুশীলনের অভাবে কন্ঠে লালিত্যের ঘাটতি থাকলেও পিতা জানেন তার কন্যার বুকে সুরের নিত্য আনাগোনা! ডো-রে-মি-ফা ভুলে যাবার বহু বছর পর আবারও সারগামে ডুব দিলাম বাবার মন রাখতে।

গৌতম নামের মাষ্টারমশাই এর সাথে আমাদের মা মেয়ের খুব ভাব হয়ে গেল।

বিস্তারিত»

গর্ব করার মত একটা লেখা শেয়ার করছি……

সিসিবির সকলের সাথে একটা দারুন লিঙ্ক শেয়ার করার লোভটা সামলাতে পারলাম না।

ঘটনা জানতে সংযোজিত লিঙ্কে গুতা দিন।

আমাদের মাসরুফ হোসেন!

ফেসবুক মন্তব্য

বিস্তারিত»

আবার কলকাতা ৫

হোটেলের কমপ্লিমেন্টারি ব্রেকফাস্টে ঘুরে ফিরে তিন মেনু, ব্রেড-বাটারের সাথে জেলি আর ডিম, অথবা আলুপরাটা আর আচার কিম্বা পুরি-সব্জি। আগের দু’বার রুমের সাথে ফ্রি ব্রেকফাস্ট ছিলোনা। মর্নিংওয়াক থেকে ফেরার সময় ফুটপাথ থেকে অথবা যেকোন খাবারের দোকান থেকে নাস্তা নিয়ে আসতাম।এবার যেহেতু কমপ্লিমেন্টারি ব্রেকফাস্ট তাই সে ঝামেলা নেই। আবিদ রুমে এসেছিলো ব্রেকফাস্ট নিয়ে তাঁকে বললাম, ‘একটা ট্যাক্সি লাগবে, সাদা ট্যাক্সি’। সে বলল, ‘স্যার আপনি এসি চাচ্ছেন কীনা বলুন,

বিস্তারিত»

প্রলাপ – ১৪

সে-কথাগুলো কেবলি ভাসতে থাকে।
আকাশের এক টুকরো ফাঁকে
কি করে এঁটে যায়
মস্ত জীবনের সবগুলো ছবি
হার্ড ডিস্ক, যত নেগেটিভ
মামুলি সব লোনাজল,
কথা অনর্গল

তাকে প্রলাপ বলে ভুল করে
ছুঁড়ে ফেলে
হাত মুখ মুছে নিয়ে
জীবনে জীবন ঘষে
আগুন জ্বালাবার মিছে
প্রয়াস নিয়ে
যখন ফুলে ফুলে
দুলে দুলে উঠছে
সব-পেয়েছি-র হাওয়া,

বিস্তারিত»

‘ওম মনিপদ্মে হুম’ – পর্ব ২

IMG03711-20150509-0839

‘ওম মনিপদ্মে হুম’ – পর্ব ২

ড. রমিত আজাদ

 

“বাঙালি অতীশ লঙ্ঘিল গিরি তুষারে ভয়ংকর, জ্বালিল জ্ঞানের দীপ তিব্বতে বাঙালি দীপংকর।” (সত্যেন্দ্রনাথ দত্ত)

 

হ্যাঁ, কোন কিছুই দমাতে পারেনি ৬২ বছর বয়স্ক শ্রীজ্ঞান অতীশ দীপংকর-কে, দুর্গম গিরিপথ, তুষারাচ্ছন্ন অয়ন, প্রতিকুল আবহাওয়া, সব বাধা অতিক্রম করে তিনি পৌছেছিলেন হিমালয় রাজ্য তিব্বতে কেবল জ্ঞানের আলো ছড়াতে।

বিস্তারিত»

~ প্যালেস্টাইনী যীশু এবং গাজায় সন্ত্রাসবাদের নার্সারী ~

“The only way to deal with an unfree world is to become so absolutely free that your very existence is an act of rebellion” – Albert Camus.

নীল চোখ, সোনালী চুল আর সাদা চামড়ার যীশুর যে প্রতিকৃতি আজ ইউরোপ আমেরিকার গীর্জায় গীর্জায় বা ঘরে ঘরে দৃশ্যমান তাতে নিশ্চিত ভাবেই তাঁকে আমরা দেখি একজন সৌম্য শ্বেতাংগের অবয়বে। যীশুকে এভাবেই তাঁদের নিজ জাতিস্বত্ত্বার সাথে মিশিয়ে একান্ত নিজের করে নিয়েছে আমেরিকান আর ইউরোপিয়ানরা।

বিস্তারিত»

রেবেকা

আজ না বুধবার
রেবেকা তারান্নুম আসবে ক্লাসে  …
আরে ইংলিশের রেবেকা;
ফুলার রোড নিমেষেই শেষ
অপরাজেয় বাংলা পার পলকেই
রেবেকা তারান্নুম আসবে ক্লাসে
আজ না বুধবার

গেল বুধবার হঠাৎ করেই
মুখ ফিরিয়ে প্রশ্ন করল
তুমি না বুয়েটের …
আশ্চর্য ! কি করে জানে
গর্বিত হৃৎপিণ্ড দু’শ ছাড়ায়
পৃথিবী ঝাপসা লাগে
রেবেকা তারান্নুম আসবে ক্লাসে
আজ না বুধবার

এরপর
হাজার বছর পার হতে দেখি
এখনো বুধবার আসে যায়
বোকা হৃৎপিণ্ড কিছুতেই
হয় না সত্তর পার …………………………

বিস্তারিত»

~ এলোমেলো ~

~ এলোমেলো – এক ~

ইচ্ছে করে
গোলাপ ফুলের রঙটা আনি গন্ধরাজে
গন্ধরাজের গন্ধটা দেই গোলাপ বনে ।
ইচ্ছে করে
মেঘগুলো সব খামচে এনে মেশাই জলে
জল থেকে সব নীল মাখি ওই মেঘের দলে ।

তোমার যত সুন্দর সব মিশিয়ে রঙে
তুলির টানে কষ্ট আঁকি নানান ঢঙে ।
ভীষণ দেখি ভালোবাসার কষ্ট-সুখে
হৃদয়পুরের ক্যানভাসে সব কেমন ভাসে ।

বিস্তারিত»

আশা নিরাশা

কালি কলম সবই ছিল,
সাদা কাগজ, তাও তো ছিল,
চিঠিও লেখার ইচ্ছে ছিল, কেবল…
লিখবো যাকে, সে ছিল না!

উথাল পাতাল ইচ্ছে ছিল,
কাব্য করার সাধ্য ছিল,
চোখেও গভীর স্বপ্ন ছিল, শুধু…
স্বপ্নদেবীর খোঁজ ছিল না!

দু’চার চরণ পদ্য লিখে,
কেটে দিতাম পর নিমেষে,
কি হতো আর ওসব রেখে, যখন…
পদ্য পড়ার কেউ ছিল না!

বিস্তারিত»

দৃষ্টিতে বৃষ্টি

রুটিন বাঁধা জীবন, সেতো বন্দীত্বেরই নামান্তর!
এপারেতে দৃষ্টি উদাস, ওপারেতে মুক্ত আকাশ,
অসীম পানে দৃষ্টি রাখি,
ভেতর থেকে বাহির দেখি,
বৃষ্টিভেজা বৃক্ষ দেখি,
কালো কাকের চক্ষু দেখি।
মাথায় ছিল সংখ্যা যত,
হঠাৎ দেখি সংকুচিত,
শূন্য ছাড়া নেই কিছু আর,
এপার ওপার ভাবতে গিয়েই ঘটছে কত ভাবান্তর!

তৃষ্ণা যখন মনের ভেতর, দৃষ্টি যখন তেপান্তর,
তখন দেখি দালান ভেজে,

বিস্তারিত»

‘ওম মনিপদ্মে হুম’ – পর্ব ১

Atisha

‘ওম মনিপদ্মে হুম’ – পর্ব ১
—————- ড. রমিত আজাদ

আজ থেকে প্রায় এক হাজার বছর আগের কথা। ১০৪২ সালে আমাদেরই বাংলাদেশের এক কৃতি সন্তান দুর্গম পর্বতমালা, কঠোর আবহাওয়া, তুষারের শীতলতা, ইত্যাদি সকল প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে ক্লান্তিকর দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে পৌঁছালেন হিমালয় দুহিতা তিব্বতে। সাথে সাথে একদল ঘোড়সওয়ার ছুটে এসে তাঁকে অভ্যার্থনা জানালো। সেই ঘোড়সওয়ারদের হাতে তীক্ষ্ণ বর্ষার মাথায় পতপত করে উড়ছে শ্বেত পতাকা,

বিস্তারিত»

মিরাজ

সাদামাটা একখানা ফতুয়ার সাথে নিভাঁজ খাকিতে
দীপ্ত মুখখানি! কালো চশমার অন্তরালে গভীর চোখের
শুদ্ধতা আর সারল্য শিশুকেও পরাভূত করে।
রূপালী হাতঘড়িতে জ্যৈষ্ঠের ধূসরাভ সন্ধ্যা।
স্মিত হাসিতে করতলখানি বাড়িয়ে বললেন,
হ্যালো, জেটা! দেখা হলো অবশেষে! গালে গাল উষ্ণ সম্ভাষন।
তর্জনী আর বৃদ্ধাংগুলে ক্ষুদ্রকায় বৃত্ত এঁকে বললেন,
এইটুকু মোটে পৃথিবী তাতেই আধা জন্ম পার হয়ে মিললো দেখা তোমার!
লালচে কমলা মাসট্যাঙে কলাপাতা সবুজ মন
কিশোরের মুগ্ধতার বিনিময়ে বালিকার প্রগলভ হাসি।

বিস্তারিত»

‘ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স’ বা পারিবারিক সহিংসতাঃ বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট

পৃথিবীর সব দেশেই, উন্নত বা উন্নয়নশীল, নানারকম সামাজিক সমস্যা রয়েছে। এর মধ্যে ‘Domestic Violence’ আমাদের দেশে যা ‘পারিবারিক নির্যাতন’ নামেই অধিক পরিচিত, তা অন্যতম প্রধান সমস্যা। ‘নির্যাতন’ শব্দটার ব্যাপকতা রয়েছে যা নিয়ে আমরা অনেক সময়েই ভাবি না। যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অফ জাস্টিস ‘Domestic Violence’ সংজ্ঞায়িত করেছে এই ভাবেঃ

‘A pattern of abusive behavior in any relationship that is used by one partner to gain or maintain power and control over another intimate partner. 

বিস্তারিত»

পিঙ্ক ফ্লয়েড এর দেয়াল : একখানা মুভি

গানের ব্যাপারে নিজেকে আমি সর্বভুক বলেই দাবি করি.. তবুও কেউ যখন ফেভারিট আর্টিস্ট বা ব্যান্ড এর ব্যাপারে তখন আমি চোখ বন্ধ করে বলে দেই Pink Floyd এর কথা। পিঙ্ক ফ্লয়েড ইজ পিঙ্ক ফ্লয়েড। পিঙ্ক ফ্লয়েড এর নাম প্রথম শুনি পত্র পত্রিকায় আমাদের দেশের বিভিন্ন ব্যান্ড এর ইন্টারভিউএ । তখন আমি স্কুলে পড়ি আরকি। সাংবাদিকরা যখন আমাদের দেশের বিভিন্ন আর্টিস্ট দের জিজ্ঞেস করে যে দেশের বাইরে তাদের ফেভারিট ব্যান্ড কি তখন সবাই কয়েকটা ব্যান্ড এর নাম বলে..

বিস্তারিত»

আবার কলকাতা ৪

কলকাতা শহরের প্রধান সমস্যা ভাসমান মানুষ। প্রায় আশি হাজার লোক প্রতিরাতে রাস্তায় ঘুমায় এ শহরে। তাদের মধ্যে অন্ততঃ সত্তর ভাগের ঠিকানাই ফুটপাত। বাকীদের কেউ রেলস্টেশনে, কেউ বাসস্টপে এক দু’দিনের অতিথি। হয়তো গ্রাম থেকে এসে আর সেদিন ফিরে যাওয়া হলোনা। রাত কাটলো রেলস্টেশনে কিম্বা বাসস্টপে অথবা দোকানের বারান্দায়। সকাল বেলায় ব্যাপারটা বেশি চোখে পড়ে।
মির্জা গালিব স্ট্রিটের সকালটা ভালো হয়না। হোটেল থেকে বেরিয়ে ফুটপাথে কিম্বা দোকানের বারান্দায় গাদাগাদি করে মানুষ শুয়ে থাকতে দেখলে দম বন্ধ হয়ে আসে।

বিস্তারিত»