তিনটি কবিতা: না করি ভোরের প্রত্যাশা!

Fronteir_Ramit(birch-tree)

এই কথাগুলো যদি তুমি আমার পাশে থেকে বলতে!
————- ড. রমিত আজাদ

ফেসবুকের ইনবক্সে মেসেজ পাঠালে,
“কেন তুমি এতো রাতে জেগে আছো?
রাতজাগা তো ঠিক নয়, শরীর খারাপ করবে যে।”
আহা এই কথাগুলো অত যোজন দূরত্ব থেকে না বলে,
যদি আমার পাশে থেকে বলতে!
“মনে করো, আমি তোমার পাশেই আছি।”
মনে তো কতো কিছুই করি!
কত ফ্যান্টাসীই তো করলাম সেই থেকে,

বিস্তারিত»

না বলা কথা

ক্যাডেট তাজনোভা হক….আমাদের ব্যাচমেট নোভা। কখনো ওকে নিয়ে কিছু লিখব ভাবিনি। কারণ ওর প্রসঙ্গে এমন কিছু কথা চলে আসবে যা বলার মত অবস্থানে (!!?) হয়তবা আমরা নেই।

নোভা দোস্ত….মাফ করে দিস। তোকে যে জাহান্নামের ভেতর দিয়ে যেতে হয়েছিল সেটা আমরা ৪৫ জন খুব ভালভাবে জানলেও ভুলেই ছিলাম সবকিছু। কারণ মনে রাখলে অনেক কিছুই যে মনে পড়ে যাবে!!

মনে পড়বে ১২/১৩ বছরের একজন কিশোরীর উপর কতটা নির্দয় ছিল তার সময়,তার চারপাশের মানুষগুলো…

বিস্তারিত»

অচেনা চীনে

সদাই পাতি ১

কেনাকাটার জন্যে চীনের চেয়ে ভাল জায়গা সম্ভবতঃ পৃথিবীর আর কোথাও নেই। পশ্চিমারা অবশ্য চীনের এই খ্যাতিটাকে সন্দেহের চোখে দেখে। বিদেশি একটি ওয়েব সাইট শেঞ্ঝেনের সবচে বড় ইলেক্ট্রনিক্স মার্কেট এসইজি সম্পর্কে লিখেছে ‘এখানে ১০০ ডলারের আইপড ১০ ডলারেও পাওয়া যায় তবে কেনার আগে বুঝে নিতে হবে জিনিষটি কাজ করে কী না কারণ চীনের এদিকটায় ঠগ বাটপাড়ের অভাব নেই।’ শুধু পশ্চিমে নয় এশিয়ার অনেক দেশেও চৈনিকরা ঠগ হিসাবে পরিচিত।

বিস্তারিত»

ধার করা লেখা

একটা কবিতা কথা চেয়ে নিলাম তোমার কাছে,
একটা বাতাস এলে মিঠাই বুনে ফেরত দেব।
একটা রোদের ফোঁটা ধরে দিলাম জানলা ফাঁদে,
একটা বৃষ্টি-ভেলায় ঝুলে যখন তোমায় ছোঁব,
একটা নাম না জানা গাছের নিচে দাঁড়িয়ে থেকো।
একটা বিষাদ গানে দুজন মিলে সুর বসাব।

একটা তামাক পাতা বাঁচিয়ে দিলাম সুখের টানে,
একটা ঠোঁটের পরে ঠোঁট বসিয়ে প্রেমিক হব।
একটা স্বপ্ন এনে ঘুম ভাঙালাম তোমার চোখে,

বিস্তারিত»

প্রণয়।

সাদা পাতা খাতা ছিল লেখাহীন জীবন
খোলা মন আকাশ ছিল মেঘে ভেজা নীল
উদার ভাবনায়
সহস্র ধারায় ঝরে প্রবাহিল প্রণয়,
ধুলা উড়া মরা গাঙে খা খা ধু ধু বালি
পরানে প্রনয় জ্বালা ডোবে না অতলে।

কালো জল টলমল চোখ ছিল ভাষাহীন
বুকে সুখে সাগর ছিল সূদুরে হরিত
অমল আশায়
সহস্র ধারায় গলে বহিল প্রণয়,
বিজন বন পল্লব পত্রহরিৎ নির্জন সপর্িল
বষর্িত বজ্র ফণা হানে ছোবলে।

বিস্তারিত»

আমার স্বাধীনতা

সূর্য এখনটা যেমন ওঠে, তখনও উঠতো। আকাশও বোধ করি নীলই ছিল। কিন্তু মনে পড়ে সূর্যের আলোটার চেয়ে তার তীক্ষ্ণ ছটা আর অসহ্য তাপটা বেশিই লাগতো। আর আকাশ ছিল ধূসর আমাদের চোখে। হ্যা, তখন আমরা ক্লাস সেভেনে।

তো সারাদিনের অর্থহীন নাটকের মাঝে একটা সময় আমার খুব প্রিয় ছিল। গেমস টাইম। তখন পেছনে ক্লাস এইটের চোখ রাঙানি ছিল না, নাইনের পার্ট ছিল না, টেন এর ভাবলেশহীন ধমক ছিল না,

বিস্তারিত»

ক্যাডেট জীবনের ছোট ছোট কাহিনী নিয়ে স্মৃতিকথাঃ Where Eagles Dare

মানুষের জীবনে নিজের অজান্তেই এমন কিছু কিছু ঘটনা ঘটে যায়, যার পরিব্যাপ্তি বুঝতে অনেক বছর লেগে যায়। অনেক সময় আবার পুরাটা উপলব্দিও করা যায় না। আমার জীবনেও তেমনি একটা ঘটনা ঘটেছিলো ক্লাস সেভেনে পড়ার সময়। ক্যাডেট কলেজে পড়ব এমনটা কখনো ভাবি নি। আসলে ক্লাস সিক্সয়ের মাঝামাঝি এসে ক্যাডেট কলেজের নাম প্রথম জানতে পারি যখন বাবা ক্যাডেট কলেজের এডমিশন টেষ্টের ফর্ম নিয়ে আসলো। ভর্তি পরীক্ষা আমার কাছে বিষের মত লাগে।

বিস্তারিত»

বিড়াল

সারাহদের ঘরে যে বিড়ালের ছবিটা টাঙ্গানো আছে সেটা দেখে তোমরা চমকে উঠতে পারো। এমনিতে একটা সোজা সরল কমলা রঙের বিড়াল, কিন্তু তুমি যদিক দিয়েই তার চোখের দিকে তাকাও, দেখবে বিড়ালটা তোমার দিকে ড্যাবডেবিয়ে চেয়ে আছে। বিড়ালটার একটা কান লাল আর একটা সবুজ।
এরকম অদ্ভুত আবার বিড়াল হয় নাকি?
সেই কথাইতো তোমাদের বলতে যাচ্ছি ।
একদিন সারাহ’র মা গিয়েছেন বাইরে। বাবাও বাসায় ছিলেননা।

বিস্তারিত»

‘আমিই পুরুষ’

খোলা ময়দানে একা

প্রহরাহীন, প্রতিরোধহীন

অক্লেশে, আকাশে তাকিয়ে

বলতেই পারি

‘আমিই পুরুষ’।

 

গভীর রাতে একাকী পথে

কুকুরের ডাক অগ্রাহ্য করে,

নিশুত পাখির ভয় জাগিয়ে

চিৎকার করে বলতেই পারি,

‘আমিই পুরুষ’।

 

মিছিলে শ্লোগানে বুক চিতিয়ে

কালো রাজপথ বুকের রক্তে রাঙিয়ে,

বিস্তারিত»

তাহারা

মাঝরাতের একান্ত গহীনে ঘুমন্ত নগরী

ফুটপাতে ঘুমিয়ে থাকা অভুক্ত শিশু,

পড়ে আছে তার পাশে তারই মত কিছু

‘পাপের শিশুর’ গলিত নাড়িভুঁড়ি।

 

তারই পাশ দিয়ে পাজেরো হাঁকিয়ে চলা,

ভদ্র মানুষেরা মুখ ঢেকে ঢুকে যায় অভদ্র পাড়ায়

তাদের হাতে বিয়ারের ক্যান, চোখ মত্ত নেশায়।

তারা দেখবে কেন রাতের আঁধারে দুর্ভাগ্যের খেলা।

বিস্তারিত»

ক্ষনিকের অভিমান

প্রথম যেদিন শ্বেতশুভ্র তুষার,
তোমার কদম চুমে ছিল,
আজও মনে পরে সেই দিনটির কথা!
ছোট্ট শিশুর অকৃত্রিম সরল হাসির মতন,
খিলখিলিয়ে হেসে উঠে বলেছিলে,
“এই দেখো দেখো, কি সুন্দর লাগছে
বরফগুলো দেখতে! যেন সাদা তুলার চাঁদর!”
আমি তখন তুষারপাতের সৌন্দর্য ভুলে
অবাক চোখে তাকিয়ে দেখছিলাম,
তোমার তুষারস্নান!
যেন তুমি ফিরে গিয়েছিলে তোমার শৈশবে,
আপনমনে মাখছিলে তুষার তোমার মুখে!

বিস্তারিত»

জীবনের জার্নাল – ৭

ভাইভার পর মেডিকেল টেস্টকে নিছক আনুষ্ঠানিকতা বই অন্য কিছু মনে হয়নি আমার, যদিও সেখানেও প্রায় ২০/২৫ জন প্রার্থী বিভিন্ন কারণে বাদ পড়েছিলো। শেষ বৈতরণীটি পার হবার পর থেকে মনটা বেশ ফুরফুরে থাকতো। আমারও, বাড়ীর আর সবারও। চূড়ান্ত ভাবে নির্বাচিত হয়েছি, এটা জানার পর আর স্কুলে যাবার তাগিদ অনুভব করতাম না, বাড়ী থেকেও তেমন কোন চাপ ছিলোনা। এই প্রথম জীবন প্রণালীর শক্ত বুনটে কেমন যেন এক ঢিলে ঢালা ভাব অনুভব করতে শুরু করলাম।

বিস্তারিত»

নিউ ইয়র্ক সিটি

“একটি চাবি মাইরা দিছে ছাইড়া,
জনম ভইরা চলতে আছে”

সেই যে কবে থেকে বাউল কবির এ গান শুনেছি,
এখানে এসে দেখতে পারছি তার সঠিক চিত্ররূপ।
চাবি মারা কলের মত মানুষের জীবন, আচরণ,
ঘড়ির সাথে বাঁধা তার দু’পা, ছুটছে তো ছুটছেই।
জীবনের এই অন্তহীন দৌড়ের কোন বিরতি নেই।

হাডসন নদীর সাথে মিশে আছে কত নোনা অশ্রুজল,
কে তার হিসেব রাখে?

বিস্তারিত»

নোভাঃ ঝরা পাতার গল্প

কিছুক্ষণ আগে সাবিনা আপার লেখা পড়লাম। ক্ষোভ, হতাশা আর গোপন রাগ খোঁচা মেরে উঠল, হাত নিতে হল কিবোর্ডে। সময় শুধু এফোঁড়-ওফোঁড় দিয়ে চলে যায়, কিন্তু মানুষ হিসেবে আমাদের সংকীর্ণতা গুলোর কোন বয়স নেই, জেনারেশনের পর জেনারেশনের মাঝে এরা কুৎসিত সেতু বন্ধন গড়ে তোলে। ভুল থেকে কি আমরা আদৌ কিছু শিখি? বিম্পি-আম্লীগ এর ক্ষমতায় থাকার নোংরা লড়াইয়ে আমরা কেন নাক শিটকাই যখন ক্যাডেট কলেজের সামান্য প্রশাসনিক ক্ষমতায় কিছু মানুষ অসামাজিক জীবে পরিণত হয়?

বিস্তারিত»

সবুজ প্রজাপতি (চতুর্থ পর্ব)

(ঐন্দ্রিলা-কাহন)

রুমী

রেনোয়ার শহুরে কপোত-কপোতী আলিঙ্গনবদ্ধ হয়ে নেচে চলেছে, পাশ থেকেই অবাক হয়ে তা তাকিয়ে দেখছে ভারমিরের মুক্তোর দুল পড়া মিষ্টি মেয়েটা। ছবি দুটি ঝুলছে উত্তরের দেয়ালে। ঘর জুড়ে আরো ছড়ানো তিশান, মোনে,টার্নার, দালি। দক্ষিনের লম্বা ব্যালকনির সীমারেখা টেনে দেয়া কালো কাঁচের স্লাইডিং ডোর আধখোলা। সাদা কালো ঝাপসা আলো খেলা করছে মার্বেলের মেঝেতে। ঘরের মাঝখানে সিলিকা কাঁচের নিচু টি-টেবিল, সেটাকে ঘিরে রাখা চেস্টারফিল্ড সোফাগুলির ব্যয়বহুল চামড়ায় ভোঁতা ঔজ্জ্বল্য।

বিস্তারিত»