স্বপ্ন

জীবনে কখনো যা হয়নি আজ তাই হচ্ছে । মন হচ্ছে আমাদের কলেজের প্রিন্সিপ্যাল দেলওয়ার স্যার কে আজ পাইলে ঠ্যাং ভাইঙ্গা দিতাম ।
( ইনি দিলওয়ার নন )
এই লোকটা কলেজের ডিসিপ্লিন ঠিক রাখার জন্য যখন জরিমানার সিস্টেম চালু করলেন, সাথে সাথে আমার মতন যে ছেলেগুলা মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে কলেজে এসেছিল, তাদের আকাশে ওড়ার স্বপ্নের পাখাটাও কেটে দিলেন । শুধুমাত্র জরিমানা আর বাবার সেন্টিমেন্টের ওপর আঘাত বাঁচাতে কখনো কলেজ পালানো হয়নি । আমি জানি এই ব্লগে এই কথাটা দেখে অনেকেই কী ভাবছেন,

বিস্তারিত»

দূরত্ব মোচন

“shit man …its a shit to be born as poor. Do you see any european here???? all the poor people we are here to learn some shit…….”বোতসোয়ানার জন বান্টুর কথাটা প্রায়ই ভাবি। আমরা এখানে চীনের ঝ্যাংঝউতে যারা আছি, সবাই হয় আফ্রিকান, না হয় দক্ষিন অথবা দক্ষিন-পূর্ব এশিয়ার লোকজন, যারা চীনের তৈরীকৃত সস্তা অস্ত্র ব্যাবহার করি,আর নিজেদের সান্ত্বনা দিয়ে বলি “it’s not the gun, rather it’s the man behind the gun.” সেই সাথে অপেক্ষা করে থাকি- কখন একটা অস্ত্রের উপর কিছু শিখানোর জন্য আমাদের মত গরীব দেশের লোকদের ডাকবে। ডাকার পর তাদের শেখানটাও হয় তাদের ইচ্ছামতই। আমাদের কী শেখা দরকার,

বিস্তারিত»

চলুন ঘুরে আসি চীন থেকে ২

আগামী মঙ্গলবার এখানে আমার কান্ট্রি প্রেজেন্টেশন । খুব ব্যাস্ততায় কাটছে । আমার এই লেখা কোন ব্লগ নয় , বরং কাজ করতে গিয়ে বেশ কিছু ভিডিও পেলাম, যা আগে কখনো দেখিনি । সবাইকে জানাতে খুব ইচ্ছা করছে, তাই শেয়ার করলাম মুজিবনগর সরকার
আরো একটি লিক্ক শেয়ার করছি…..খুলনার হত্যাকান্ড
আশা করছি আমার মত অনেকেই যারা আগে দেখেননি, তাদের ভাল লাগবে
আসল কাহিনীর পরের পর্ব নিয়ে খুব শিঘ্রই আসব,

বিস্তারিত»

অক্লান্ত বনিক

আজ আমি আমার জীবনের স্বাধীনতা কিনতে এসেছি ।
রক্তাক্ত মানুষের আর্তনাদে ব্যাবসায়ীর হাঁকানো দামের কন্ঠ
স্তব্ধ করে দিতে এসেছি ।
আজ আমি অনেক চড়া মূল্যে বিকানো ইতিহাস কিনতে এসেছি………
সাড়ে ১৬ কোটির ভীড়ে ৩০ লক্ষ প্রাণ কি নিতান্তই তুচ্ছ নয় ???

আজ আমি রক্ত-লাল মসলিনে মোড়ানো স্বাধীনতা কিনতে এসেছি ।
তরল রক্তের বানে পরাধীনতার জঙ্গলকে পবিত্র করতে এসেছি ।
আমি আজ নতুন করে আমার জাতির ইতিহাস লিখতে এসেছি ।

সে ইতিহাসে কোন যুদ্ধ থাকবে না ,

বিস্তারিত»

চলুন ঘুরে আসি চীন থেকে

কেমন আছেন সবাই? আবারো অনেক কদিন পর ব্লগে এলাম । শেষ ব্লগটি লিখেছিলাম সেই ২০১১ সালে । মাঝে পুরো এক বছর কেটে গেছে । কাজের চাপে , সময়ের অভাবে, নিজের আলসেমীতে ব্লগ লেখা না হলেও প্রায়ই ব্লগ পড়া হত । এখনও নিওমিতই পড়া হয় তবে কিছু লিখা যেন হয়েই উঠছিল না । তবে বর্তমান পরিস্থিতি হল একটা কোর্সে কারনে প্রায় ২ মাস ধরে আমি চীনে অবস্থান করছি । আসার পর থেকেই নতুন কিছু দেখা,

বিস্তারিত»

আজাইরা কষ্ট,অসীম প্রতীক্ষা

ক। বাসায় ছুটিতে গেলে সেখানে ঈদে আমার কর্মসূচী বেশ একটা সেট প্যাটার্নের । সকালে নামাজ , কিছুটা খাওয়া-দাওয়া আর তারপর সবগুলা টি ভি চ্যানেল এ প্রগ্রামের সাথে সাথে মজা করে এ্যড দেখা । সবগুলা চ্যানেল একসাথে যেন কম্পিটিশনে নামে কে কার চেয়ে বেশি এ্যড দেখাতে পারবে । এবার তার সাথে সন্ধ্যা থেকে শুরু হল খুব বাজে রকম জ্বর । তা এমন ই যে মাথাটা বিছানা থেকে উঠানো যেন পৃথিবীর সবচেয়ে ভারী কাজ করা । যথারীতি মেজাজ খারাপ হতে লাগল। কিন্তু সেটা সহনীয় মাত্রা ছাড়াল তখন ই যখন প্রায় সবগুলা সাইট দেখেও বুঝতে পারলাম না যে ৭ নভেম্বর আসলে আমাদের দেশে কী হয়েছিল ।আমার মনে আছে কয়েক বছর আগেও এটা ছিল একটা সরকারি ছুটির দিন । আজ হটাত করে এটা কেন একটা কাল দিন হয়ে গেল,

বিস্তারিত»

ষ্ট্রবেরী

কখনো একবার চেখে দেখিনি তোমায়।
বিদেশী ছবিতে-
দুধে-আলতা রঙের কাট-কাট চেহারার নায়িকারা
টমেটো রঙের নেইল পালিশ আর লিপস্টিক মেখে,
খুব বেশি অ্যাপিল জাগিয়ে
তোমায় যখন ঠোঁট লাগাতো—–
ভাবতাম-
লুকায়ে লুকায়ে জাম খাওয়াও তো অনেক ভাল।

কৃষিবিদ বাবা বলেন তুমি এদেশের উপযোগী নও—–
আমাদের আপন হবে না কখনও ।

আজকাল কারও নিঃশ্বাসে ভেসে আসা
লিপগ্লসের গন্ধে তোমার অস্তিত্ব
নির্ঘুম আমার তারা গোনার উপলক্ষ ।

বিস্তারিত»

ঈদ গিফট

সকালে ফোনের শব্দে ঘুম ভাঙ্গলো । মনে পড়লো এক ফ্রেন্ডরে বলছিলাম সকালে উঠতে পারলে যাতে ডাইকা দেয়…বন্ধু কথা রাখছে । এই কথা মনে হইতেই সকালটা হটাত খুব ভালমনে হইতে লাগলো । পরে যথারীতি ছোট ভাইডারে ঘুম থেইকা ডাইকা উঠাইয়া রেডি হইতে লাগলাম । নামাজ পড়লাম নতুন এক ভেন্যুতে । একেবারে জাস্ট টাইমে নামাজ শুরু হইল । ক্যান্টনমেন্টের বাইরে এইরকম অভিজ্ঞতাও এই প্রথম । সকালের হালকা রোদে নামাজ……ছোটভাই,

বিস্তারিত»

এ জার্নি বাই বাস-১

নীচের এই কাহিনী পুরাটাই ব্লগারের নিকট অতীত জীবনে ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনার সন্নিবেশ । ফলে এই ব্লগের সাথে সংশ্লিষ্ট না এমন কারও জীবনের কোন ঘটনার সাথে মিলে যেতেই পারে । তবুও এজন্য ব্লগার দায়ী নয় । এজন্য বড়জোর তার সৌ/দুর্ভাগ্যকে দায়ী করা যেতে পারে

সন্ধ্যা ৬টা

দুরুদুরু বুকে বাস কাউন্টারে আমার পদার্পণ । আল্লাহই জানে কি আছে কপালে……
-ভাই বগুড়ার কোনো সিট হবে ?

বিস্তারিত»

স্বপ্ন

সকালে ঘুম থেকে উঠতেই টের পেলাম ব্যাপারটা । বাম হাতের জয়েন্টে সামান্য ব্যথা করছে । কেনো ? কি হলো আবার ? আল্লাহ মানুষকে একখান শরীর দিয়া ক্যান যে তার এতো প্রবলেম দিসেন –তা একমাত্র আল্লাহ নিজেই জানেন ? এতো অসুখ- বিসুখ দেওয়ার দরকার কি ছিলো ? আর তার জন্য দুনিয়ার ঔষুধ ‌, তার আবার হাজারো টাইম-টেবিল । আমার একটা বড় দূর্বলতা হলো আমি কখনো কোন একটা ঔষুধ ঠিক টাইম- টেবিল মেনে তার কোর্সটা শেষ করতে পারি না । আল্লাহই জানে এই ব্যাথা কি জন্য আর কতটুকুই বা সে ভোগাবে ?

বিস্তারিত»

ভয়ংকর ঝড়

পাঠ্য বই ছাড়া শুধু নুপুরদা আর জিতু আপুর লেখা কিছু কবিতা – ব্যাস……এই আমার কবিতা পাঠের ইতিবৃত্ত । তাই কিছু লিখতে গেলে খুব ভয় হয়……ছন্দ, অন্তমিল, মাত্রা……কত কী সব আছে যেগুলো কোনদিন ভেবেও দেখিনি । আবার ভাবি……এটা তো আমার ব্লগ । আমাদের ব্লগ । এখানেই যদি মনের কথা না বলি…তাহলে আর জায়গা কোথায় ??????? তাই কিছু মনে হতেই আবার কী-বোর্ডে হাত রাখলাম

ধ্বক….ধ্বক……..ধ্বক….উহ !

বিস্তারিত»

লোডশেডিং

তুমি চাইলেও ভুলতে পারোনা তাকে ।
বারবার তার নিখাঁদ সৌন্দর্য নিয়ে
হাজির হয় সে নিজস্ব ভঙ্গিমায়,
আবির্ভাবের বৈচিত্র নিয়ে–
তোমার সামনে ।
তোমাকে মুক্ত করে দেয় কিছুক্ষণ এই যান্ত্রিক জীবন থেকে ।

অফিসের প্রচন্ড ব্যস্ততার মাঝে বারবার
তোমাকে এনে দেয় কিছুটা দম নেবার ক্লান্ত অবসর ।
কম্পিউটার মনিটরে শেয়ার বাজারের উত্থান-পতন,
সেই সাথে তোমার অসংখ্য ফোনকল –

বিস্তারিত»

মিতু

“ওয়াও !!!!! তোমার পিচ্চিটা কিন্তু খুবই কিউট হইছে । কি নাম রাখলা মামনির ??????”

” হুম…আর বইলোনা । সে যত দিন যাচ্ছে , ততই বেশী দুষ্ট হচ্ছে । আর নামের কি আর অভাব আছে ????? ওর বাবা, দাদী, চাচা, ফুফু …সবাই চায় তার দেয়া নামটাই যাতে ফাইনাল করা হয় । আর আমার ইচ্ছা ওর নাম রাখি সুরভী । কিন্তু ওর বাবার আবার এই নাম একদমই পছন্দ না । মজার ব্যাপার হল …কাল রাতে এই নাম নিয়ে ঝগড়াও হয়ে গেছে । আজ সকালে সাহেব না খেয়ে অফিসে গেছেন প্রতিবাদস্বরুপ ।”

বিস্তারিত»

জীবনালেখ্য

জিতু আপির উপর আমার একটু রাগ হচ্ছে । বাবা তোমার স্টোরে জায়গা নাই , ভাল কথা । তাই বলে তোমার সব লেখাই আমার প্রিয়তে রাখতে হবে—–এ কেমন কথা ? নারী কবিতা পড়েই বোধহয় লিখতে বসেছিলাম……………………

কেউ কথা রাখেনি……………………………

ভয় পেলে ? হা হা হা ভয় নেই,
সুনীলের মত কোন প্রেম কবিতা শোনাতে বসিনি তোমাদের ।
দু’হাত ভরে প্রেমের উপাদান বিলাতে বিলাতে
আমি নিজেই যে আজ নিঃস্ব প্রায় ।
শ্রান্ত-ক্লান্ত আমি তোমাদের বোঝার ভারে
ন্যুব্জ হয়ে পড়ছি ক্রমশ…দিনদিন ।

তবু তোমাদের মন পাইনি কোনদিন–

বিস্তারিত»

অপমৃত্যু

চলে গেলো ওরা…
আমার দিকে ফিরে তাকালোনা একবার……
একবারও কেউ বললো ন “তোমাকে দু’চোখে দেখতে পারি না আমি……………
……………………………………………………………
……………………………………………………………
এমনই বোধ হয় কিছু একটা লিখেছিলাম আমার জীবনের প্রথম কবিতা হিসেবে । তাও আবার লিখেছিলাম আমার ২ ব্যাচ জুনিয়র যখন কলেজ থেকে এস এস সি পরীক্ষার ছুটিতে যাচ্ছিলো আর আমি আমার রূমের জানালা দিয়ে তাদের দেখছিলাম , তখন । জানিনা কেন সেদিন প্রথমবারের মত আমার মাঝে কবিত্ব জেগে উঠেছিল ,

বিস্তারিত»