বলুনতো এই ছবিটা আসল না সাজানো?

বলুনতো এই ছবিটা আসল না নকল?

photo0016

এটি গত ২১শে ফেব্রুয়ারীতে শাহবাগের গন জাগরন মঞ্চের পাশে জাতীয় জাদুঘরের বাউন্ডারি ওয়ালে ১৯৭১ সালের যুদ্ধের সময়কার পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিভিন্ন নির্যাতনের ছবি প্রদর্শিত হয়েছিল(ঠিক আজিজ মার্কেটের উল্টা পাশে),আমি সেখান থেকে এই ছবিটি আমার মোবাইল ফোনে তুলে এনেছি। আমার কাছে এই ছবিটির ২টা ব্যাপার একটু অস্বাভাবিক মনে হয়েছে। মনে হয়েছে সাজানো। পাঠকরা ভাল করে ছবিটি দেখুন আর আমাকে বলুন এটা আসল না সাজানো। সাজানো হলে বা অস্বাভাবিকতা থাকলে সেগুলো কি। আর আসল হলে কেন আসল। আপনাদের মতামত জানান।

আমি আমার সন্দেহটা জানাচ্ছি। আমার সাথে মিলিয়ে নিন যে আমি ঠিক কিনা।

১) একটু লক্ষ্য করুনতো লাইট পোস্ট টা। কি মনে হয়?সোডিয়াম বাতির পোস্ট না? ১৯৭১ সালের সময় টিউব লাইট ছিল ঢাকা শহরে। এরশাদ এসে সোডিয়াম লাইট লাগায়। টিউব লাইটের পোস্ট কিন্তু এরকম না। নীচে একটা টিউব লাইট পোস্ট এর ছবি দিলাম।

tube light post

২) এবার আর্মির জীপ দুইটা লক্ষ্য করুন। এগুলো মানে এই আধুনিক মডেলের জীপ বর্তমান বাংলাদেশ আর্মি ব্যবহার করে। ৪২বছর আগে পাকিস্তান আর্মি এই মডেলের জীপ ব্যবহার করতোনা। নীচে একটি পাকিস্তানী আর্মির জিপের ছবি দিলাম।

pakistan army jeep

 

এবার মিলিয়ে নিন। আমার সন্দেহ যদি ঠিক হয় তাহলে আমার প্রশ্ন এরকম ছবি ওখানে প্রকাশ করা হল কেন? এটা যতদুর মনে হচ্ছে প্রতীকী ছবি। মুক্তিযুদ্ধের আসল ছবির কি এতই অভাব যে খুজে পেলো না? আর না পেয়ে থাকলে অন্তত ছবির নিচে লিখে দিতে পারতো যে এটা একটি প্রতীকী ছবি। আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি তারা এভাবেই বিভ্রান্ত হই। সেদিন আমি সাথে সাথেই পাশে যারা দেখছিল তাদেরকে আমার সন্দেহের কথা জানিয়েছিলাম কিন্তু খুব বেশি কথা বলতে পারিনি সেটা নিয়ে কারন তখন জাগরণ মঞ্চের জয় জয়কার। হয় গণ পিটুনি খেতে হত আর না হয় শুনতে হত আমি রাজাকার!!

 

১,০১৯ বার দেখা হয়েছে

২২ টি মন্তব্য : “বলুনতো এই ছবিটা আসল না সাজানো?”

  1. জুনাইদ ( ৮৩-৮৯)

    তোমার সন্দেহ অমূলক নয়। ঐতিহাসিক ছবি প্রদর্শনে আরও দায়িত্ববান হওয়া উচিত ছিল। বিকৃত ইতিহাস মানুষকে বিভ্রান্ত করে।
    তবে কিনা...

    রূপকথার গল্পে বাঘ রাজপুত্রকে বলে...... 'আমি তোমাকে খাব', গল্পটা অবিশ্বাস্য হলেও বাঘের মানুষ খাওয়াটা কিন্তু অবান্তর নয়!


    লোকে যারে বড় বলে বড় সেই হয়!

    জবাব দিন
    • সিরাজ(১৯৯১-১৯৯৭)

      জ্বী ভাইয়া,এটা হচ্ছে প্রতীকী ছবি কিন্তু ওরা সেটা উল্লেখ করেনি।কিন্তু উল্লেখ করা উচিৎ ছিল। ওখানে আরও ছবি ছিল যেমন রেসকোর্স ময়দানে লেঃজেঃঅরোরা এবং নিয়াজির আত্মসমর্পণের।যারা মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি তারা কিন্তু বিভ্রান্ত হবে।তাই তাদের উল্লেখ করা উচিত ছিল ছবিটার নীচে প্রতীকী ছবি উল্লেখ করা।আমার মনে সন্দেহ হচ্ছিল সেদিন এবং আমার সাথে আমার একজন রিলেটিভ ছিল আমেরিকান।সে আমাকে বল্ল যে বাহ পাকিস্তান আর্মি তো অনেক আধুনিক জীপ ব্যাবহার করতো।আমি কি উত্তর দেব সেই মুহূর্তে?


      যুক্তি,সঠিক তথ্য,কমন সেন্স এবং প্রমাণের উপর বিশ্বাস রাখি

      জবাব দিন
  2. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    এই ছবির ব্যাপারে এই মুহুর্তে আমার কাছে তথ্য বলতে শুধু আপনার এই পোস্ট, এর উপর ভিত্তি করেই আপনার প্রশ্নের উত্তর দেবার চেষ্টা করছি।

    ১। ছবির ইউনিফর্ম পরা অস্ত্রধারীরা কি কোন ফটোগ্রাফার/মিডিয়া বা কোন মহলের অনুরোধে খোলা রাস্তায় দাঁড়িয়ে ক্যামেরার জন্য পোজ দিচ্ছে? দেখে আমার অন্তত মনে হচ্ছে না।

    ২। ছবিতে থাকা আর্মি জিপটা কি কোন ফটোগ্রাফার/মিডিয়া বা কোন মহলের অনুরোধে তাদের ফটোশুট বা কোন প্রোপাগান্ডা ক্যাম্পেইন চালানোর জন্য প্রপস হিসেবে ব্যবহ্রত হচ্ছে? এবারো আমার তা মনে হচ্ছে না।

    ৩। একই কথা খাটে মাটিতে পড়ে থাকা দেহটি নিয়ে, মনে হচ্ছে না যে তাকেও সাজিয়ে রাখা হয়েছে বা সে অভিনয় করছে।

    এ কারনে এক কথায় আপনার প্রশ্নের আমার উত্তর হবে ছবিটি আসল, সাজানো না।

    এখন কথা হলো ১৯৭১ এর স্বাধীনতা যুদ্ধের সময়ে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিভিন্ন নির্যাতনের ছবি হিসেবে এই ছবির প্রদর্শন কি ঠিক ছিলো? আমার উত্তর হবে কোন মতেই না। যারা ছবি বাছাই এবং নির্বাচনে ছিল তাদের আরো অনেক বেশি যত্নবান হওয়া উচিৎ ছিল। তবে সামগ্রিক ভাবে এটাকে আমি একই নির্দোষ ভুল হিসেবেই দেখতে চাই, কারন ছবিটি ভুল সময়ের হলেও এর মাধ্যমে কোন অসত্য বক্তব্য প্রচার করা হয়নি বা প্রচারের চেষ্টা করা হয়নি।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
    • সিরাজ(১৯৯১-১৯৯৭)

      ভাইয়া,তুমি মনে হয় আমার লেখাটা সম্পূর্ণ পড়নি। তুমি একটু ভালভাবে পড় আমি কি বলতে চেয়েছি বা বলেছি। আমার প্রশ্ন ছিল শুধু প্রথম ছবি নিয়ে। পরের গুলো নয়।প্রথম ছবিটা যে আসল ১৯৭১ সালের নির্যাতনের ছবি না আমি সেটা প্রমাণ করতে যেয়ে পরের ছবিগুলো যোগ করেছি উদাহরন হিসাবে।প্লিজ তুমি ভালভাবে লেখাটি পড়।


      যুক্তি,সঠিক তথ্য,কমন সেন্স এবং প্রমাণের উপর বিশ্বাস রাখি

      জবাব দিন
      • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

        ভাইয়া আমি শুধু প্রথম ছবিটা প্রসঙ্গেই কথাগুলো বলেছি, পরের ছবিগুলোর বাপ্যারে কিছু বলিনি বা পরের ছবিগুলোকে আমার যুক্তি প্রদানের জন্য রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহারও করিনি। আশা করি মন্তব্যটি আবার পড়লে বিষয়টা পরিষ্কার হবে।


        আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
        আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

        জবাব দিন
          • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

            ভাইয়া আবার চেষ্টা করছি, আপনি প্রশ্ন করেছেন ছবিটি সাজানো কিনা, আমি বলেছি ছবিটি সাজানো নয়, কেউ ঐ ছবির উপাদানগুলিকে সাজিয়ে ছবিটি তোলেনি, ছবিটি একটি আসল ছবি তবে ১৯৭১ এর ছবি নয়। ছবিটি ১৯৭১ এর ছবি হিসেবে প্রদর্শন করা অবশ্যই বড় ভুল হয়েছে তবে সেটা আমি একটি নির্দোষ ভুল হিসেবে মনে করছি কারন এর দ্বারা কোন মিথ্যা বক্তব্য প্রচারের চেষ্টা করা হয়নি।

            আর আমার মনে হয় না এটিকে প্রতীকী ছবি হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে, এটা যে বা যারা ছবি নির্বাচনে নিয়যিত তাদের হিউম্যান এরর (মানবিক ভুল?), এরকম ভুল কোন ভাবেই কাম্য বা গ্রহনযোগ্য নয়। সেই সাথে কোনরূপ উদ্দেশ্য প্রনোদিত হয়ে সে বা তারা ইচ্ছাকৃত ভাবে এটি করেছে তাও আবার মনে হচ্ছে না।


            আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
            আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

            জবাব দিন
            • সিরাজ(১৯৯১-১৯৯৭)

              এবার তুমি ঠিক বলেছো।আমি ছোট একটা অভিজ্ঞতার কথাও বলেছি।ছবিটার বিষয়টা ঠিক আছে কিন্তু ছবিটা ১৯৭১সালের নয়।নতুন প্রজন্মকে সঠিক তথ্য জানাতে আমাদের দ্বায়িত্বশীল হতে হবে।ছবিটার নীচে প্রতীকী লিখলেই ভাল হত।


              যুক্তি,সঠিক তথ্য,কমন সেন্স এবং প্রমাণের উপর বিশ্বাস রাখি

              জবাব দিন
              • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

                ভাইয়া প্রথম কমেন্টেও একই কথা বলতে চেয়েছিলাম, হয়ত বেশি বিস্তারিত বলতে গিয়ে মূল কথা বোঝাতে পারিনি। ইতিহাসকে সঠিক ভাবে তুলে ধরতে হলে সংশ্লিষ্ট সকলকেই দ্বায়িত্বশীল হতে হবে সেই সাথে ভুল চোখে পড়লে এভাবে তা ধরিয়েও দিতে হবে।


                আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
                আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

                জবাব দিন
                • সিরাজ(১৯৯১-১৯৯৭)

                  সেদিন আমি সাথে সাথেই পাশে যারা দেখছিল তাদেরকে আমার সন্দেহের কথা জানিয়েছিলাম কিন্তু খুব বেশি কথা বলতে পারিনি সেটা নিয়ে কারন তখন গণ জাগরণ মঞ্চের জয় জয়কার। হয় গণ পিটুনি খেতে হত আর না হয় শুনতে হত আমি রাজাকার!!


                  যুক্তি,সঠিক তথ্য,কমন সেন্স এবং প্রমাণের উপর বিশ্বাস রাখি

                  জবাব দিন
  3. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

    ইতিহাস বিকৃত করে উপস্থাপন ঠিক নয়।

    এটাকে নমুনা চিত্র হিসাবে নিলেও ৭১ এর ছবির পাশে দেয়া ঠিক নয়। আলাদা করে দেয়া যায়।

    আর মিথ্যা দিয়ে ইতিহাস বানানো যায় না।

    দুইটা বা ততোধিক ছবি আমি, আমরা ও অন্যরাও পাকিদের অত্যাচারের নমুনা হিসাবে ব্যাবহার করতাম। পরে জানলাম কাহিনী ভিন্ন।

    ইতিহাস খুব নির্মম। মিথ্যার বাণিজ্য দীর্ঘদিন চালানো সম্ভব নয়।


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
  4. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    ভাই, ছবিটা দিয়ে গুগল সার্চ দিয়ে দেখলাম বেশ কিছু লেখায় এটি ১৯৭১ সালের ছবি বলে রেফারেন্স হিসেবে দেয়া হয়েছে। তবে এক জায়গায় দেখে একটু অবাক হলাম। Bharat Rakshak, Consortium of Indian Defence Websites নামের এক ফোরামে '1971 War: 'I will give you 30 minutes' শীর্ষক এক থ্রেডের কমেন্টের ঘরে বড় করে এই ছবিটি দেয়া আছে। সেখানে আচার্য্য নামক একজন এই ছবিটি পোস্ট করে লিখেছে 'In between there is firing on the streets of dhaka - killings in plain sight by Paki soldiers'

    এই লিঙ্কে গেলে দেখতে পাবেনঃ http://forums.bharat-rakshak.com/viewtopic.php?p=790816


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
    • সিরাজ(১৯৯১-১৯৯৭)

      তাহলেই বোঝ কি অবস্থা। মানুষ তো বিভ্রান্ত হবেই। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের ছবির এতই অভাব যে খুঁজে পেলোনা,নাকি আমরা পার্থক্য করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছি কোনটা মুক্তিযুদ্ধের সময়ের আর কোনটা নয়।


      যুক্তি,সঠিক তথ্য,কমন সেন্স এবং প্রমাণের উপর বিশ্বাস রাখি

      জবাব দিন
  5. হুম আপনার সন্দেহ সত্য, এইটা একটা বানানো ছবি, হয়তো সেদিন ২৬ এ মার্চের গণ হত্যার আরেকটি নৃস্রংশ রুপ ফুটিয়ে তোলার জন্যই এই প্রতীকি ছবিটি ব্যাবহার করা হয়েছিল… শুদুই একটাই ভুল আমি দেখতে পারছি তা হল এই ছবিটি যে প্রতীকি ছবি তা উল্লেক না করা…

    জবাব দিন
  6. মোকাব্বির (৯৮-০৪)

    প্রতীকি ছবি। বাড়তি ধারণা করছি কোন চলচিত্র বা ডকুমেন্টারির অংশ!


    \\\তুমি আসবে বলে, হে স্বাধীনতা
    অবুঝ শিশু হামাগুড়ি দিল পিতামাতার লাশের ওপর।\\\

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।

:) :( :P :D :)) :(( =)) :clap: ;) B-) :-? :grr: :boss: :shy: x-( more »

ফেসবুক মন্তব্য