জানা হতো না

ক্যাডেট কলেজে না গেলে হয়তো ওই ছোট বয়সে ১ হাজার সূর্যোদয়ের দেখা পেতাম না। টেবিল সাজানোর জন্য ফল ইন ভেঙ্গে উসাইন বোল্ট হওয়ার ইচ্ছাও মনে যে জাগতে পারে তা ভাবনার মাঝে আসতো না। মাথা নিচু করে হাঁটতে হবে, টেবিলে দাঁড়ালে গ্লাসের নিচের অংশের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে, সবসময় সালামের উপর থাকতে হবে, টাচ লাগলে সাবধান হয়ে সরি বলতে হবে,সবার জন্য চা ঢেলে সবচেয়ে বড় কাপ সবচাইতে সিনিওরকে দিতে হবে এরকম হাজারও নিয়মের মাঝে যে মজার ঘটনা ঘটতে পারে তা জানা হত না। “ভাইয়া প্লিজ লবণের ডিশটি দিন”, “ভাইয়া প্লিজ ডালের পটটি দিন” এরকম অস্বাভাবিক অনুরোধের জন্ম তো এইসব নিয়ম থাকার জন্যই। ক্যাডেট না হলে তীব্র শীতের সকালে বরফ শীতল পানিতে গোসল করার সাহস হতো না, অথবা সূর্য যখন তার শক্তিময়তা দেখিয়ে প্রখর রোদের জন্ম দিত তার মাঝে সাবধান হয়ে দাঁড়িয়ে থেকে মুখ পুড়ে যাওয়ার অনুভুতি পাওয়া হতো না। ক্যাডেট না হলে পিটি এক্সকিউজের পর অথবা দুপুরে লাঞ্চ করে আসার পর আধ ঘণ্টার ঘুম যে কত শান্তির হতে পারে তা জানা হতো না। জানা হতো না স্টাফের সাইকেলের টায়ার পাঙ্কচার কিংবা কাঁঠাল চুরি কিংবা মসজিদে বসে দুই বন্ধুর পাঞ্জাবীতে গিট্টূ দিতে অথবা প্যারেন্টস ডেতে হাউজে খাবার নিতে কত সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। সঙ্গীত সাধনাকে কি করে সুনিপুণভাবে অত্যাচারের পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া যায়, সারাদিন মরার মত ঘুমিয়েও কিভাবে ভাল রেজাল্ট করা যায়, একজন মানুষ কিভাবে সব খেলায় পারদর্শী হয় তা দেখাও হতো না, জানাও হতো না। জানা হতো না কিউয়ি, ডায়মন্ড, পপুলারের মধ্যে কোনটা কিসে ভালো।জানা হতো না সারা বাজার ঘুরে অনেক কষ্টে পাওয়া চিনতি নামে এক ধরনের কাপড় আছে, জানা হতো না ওইটার চেয়ে তোষকে ভালো পালিশ হয়। পড়া মুখস্ত না হলেও কিভাবে গাইড বংশের নাম ঠোঁটের আগায় রাখতে হয়,কাঁটা চামচ দিয়ে কিভাবে ইলিশ মাছ খেতে হয় জানা হতো না। কাদা মাটিতে কেয়ামত পর্যন্ত ফ্রন্ট রোল দিতে দিতে কেয়ামত কেন আসে না, টাচ অ্যান্ড ব্যাকের সময় স্টাফের দেখিয়ে দেওয়া চীন দেশের তালগাছ যে আসলে চীনেই অবস্থিত এরকম সাধারণ জ্ঞানে জ্ঞানী হওয়া হতো না। জানা হতো না ১০০ মিটার রিলে কতোটা উন্মাদনা সৃষ্টি করতে পারে, রিল চেঞ্জে একটি ভুল কতোটা গ্রাস করতে পারে। জানা হতো না স্থান, কাল, সময় সবকিছু পরিবর্তন হলেও জীবনটা কিভাবে একটি বন্দি জায়গায় আটকে থাকে, বয়স বাড়লেও জীবনটা কিভাবে ক্লাস ১২ ই আটকে থাকে। এখন অনেক কিছুই জানি, আর তাই বাস্তবতার চেয়ে স্মৃতির মাঝেই বেঁচে থাকতে ভালো লাগে।

৩৬৮ বার দেখা হয়েছে

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।

:) :( :P :D :)) :(( =)) :clap: ;) B-) :-? :grr: :boss: :shy: x-( more »

ফেসবুক মন্তব্য