মুক্তি ৩

আমাদের বিচ্ছেদ ছিল কয়েক মাসের
এর মাঝেই তুমি
অন্যপুরুষের কাছে আশ্রয় খুঁজতে গিয়েছ।
শুনেছি ওরা প্রথমেই তোমার শরীরের ফিটনেস জানতে চেয়েছিল
তুমি লজ্জায় কুঁকড়ে গিয়ে বলেছিলে,
মেয়ে মানুষের ওসব বলতে নেই
এই ভেবে আশ্চর্য হও তুমি,
তোমার মনের গভীরতার চেয়ে ওদের কাছে
ফেয়ারনেসটাই বেশি প্রায়োরিটি পেতো।
তুমি ভালোবাসার দারুন দুঃসময়ে জন্মেছো ভেবে
আমাকেই কি মনে পড়তো না?
পড়তো ঠিকই,
বলতে না।

মাত্র কয়েক মাসের সম্পর্কে ওরা তোমাকে
‘জান’ নামে ডেকেছে কয়েক আলোক বর্ষ বার
মুঠোফোনে কাল্পনিক চুমোতে
তুমি নাকি হাঁপিয়ে উঠতে
বিষিয়ে উঠতে।
বেড টেস্টে তুমি অপরাগতা প্রকাশ করলে
কি কর্কশ কন্ঠে ওরা বলতো,
“ইমপসিবল। উই জাস্ট নিড টু ব্রেক আপ।”

এতোটাই সহজ যদি ভেঙে যাওয়া
গড়া তবে আরো কি সহজ?
যেদিন আমার কাছ থেকে চলে গেলে
তুমি লিখলে,
ফ্রি লাইক আ বার্ড।
মুহুর্তে শতশত লাইক, কমেন্ট,
স্বান্ত্বনা,ব্রেক আপ পার্টির দাবী।
অথচ তুমি শান্ত ছিলে না।
তখনও তোমার ভেতরে ছিল আমি নামের একটি
স্থায়ী অস্তিত্বের তোলপাড়।

চাইলেই কি আর মুক্তি মেলে?
তোমার জন্য ভালোবাসার খাঁচা নিয়ে
অপেক্ষা করলো কিছু কামুক পুরুষ
তুমিও কি সহজ অভ্যাসে
জড়ালে একটি খাঁচায়।
অতঃপর সেই পুরনো ডানা ঝাপটানো
নতুন কাউকে পুরনো নামে ডাকা
সেই পরিচিত হ্যাং আউট
লোক দেখানো ফটোসেশান
কতো কি. . .

কিছু দিন রোমান্টিসিজম,রবী ঠাকুরের কবিতার লাইন
আরো কত অভিনয়। কত অভিমানের চাপা কান্না।

অতঃপর
একদিন
সব শান্ত।
দুবোর্ধ্য কবিতার মতো ওরা বদলে গেলো
তোমাকেই মুক্তি দিয়ে চলে গেল।

অবশেষে
আজ এই ভাঙা রাতে পুরনো আমাকে এসব কথা বলতেই
অবিকল আগের মতোই হুহু করে কেঁদে উঠলে
কয়েক মাসের বিচ্ছেদ
কয়েক মিনিটি কেটে গেলে
তুমিও বুঝতে পারলে,

কোন মুক্তিই
মুক্তি নয়….
নতুন একটি শৃঙ্খলে বাঁধার
পূর্বপ্রস্তুতি।

(রাব্বী আহমেদ।
বেতাগী,২১।১০।১৩)

১,১৮২ বার দেখা হয়েছে

৪ টি মন্তব্য : “মুক্তি ৩”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।

ফেসবুক মন্তব্য